বদলে যাচ্ছে এভারেস্টে আরোহনের যাত্রাপথ

ট্রাভেল নিউজ বিডিঃ বদলে যাচ্ছে এভারেস্টে আরোহনের নির্দিষ্ট যাত্রাপথ। এভারেস্ট বিজয় পর্বতারোহীর জন্য জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন। যে কোন ২০১৪ সালে ভয়াবহ তুষারধসে ১৪ পর্বতারোহী মারা যাওয়ার পর  এভারেস্টে আরোহনের ব্যাপারে নতুন এ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে নেপালের সাগরমাথা পলিউশান কন্ট্রোল কমিটি। পর্বতারোহনের ইতিহাসে ওটাই ছিল সবচেয়ে বেশি প্রাণঘাতি দুর্ঘটনা।  বর্তমান রুটটি ব্যবহার করা হচ্ছে নব্বইয়ের দশক থেকে। বেইজক্যাম্পের পর থেকে পর্বতারোহীরা এখন আরও মাঝের দিকের রুট ব্যবহার করবেন। সরে আসবেন বামের খুমবু তুষারপাতের এলাকা থেকে। ওই এলাকাতেই গত বছর ভয়াবহ তুষারধসের কবলে পড়েছিলেন পর্বতারোহীরা।

wasfia-nazreen-mount-everest-winning

ওয়াসফিয়া নাজরীনের এভারেস্ট বিজয়

ওই দুর্ঘটনার পর পর্বতারোহন বয়কট করেছিলেন শেরপারা। আরও ভাল পারিপার্শ্বিকতা ও বেতনের দাবি জানান তারা।

বেইজ ক্যাম্পে তাদের প্রতিবাদের পর এভারেস্ট আরোহন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। চলতি বছরের বসন্তে পর্বতারোহন মৌসুমের আগেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও বাড়াতে চায় নেপাল সরকার।

এভারেস্টে আরোহনের রুট নির্ধারণের কাজ করে সাগরমাথা পলিউশান কন্ট্রোল কমিটি। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান অঙ দরজি শেরপা জানালেন, খুমবু তুষারপাতের এলাকায় ধসের আশঙ্কা বাড়ছে। তাই আমরা রুটটা আরও মাঝের দিকে নিয়ে আসছি, যেখানে এই ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা নেই বললেই চলে।

অঙ আরও জানালেন, বৃটেন থেকে দড়ি এবং মই আমদানি করা হয়ে গেছে এরই মধ্যে। নতুন রুটে ওইগুলি স্থাপন করা হবে।

মাঝামাঝি এই রুটটা অবশ্য নতুন নয়। দুই দশক আগে এই রুটটিই ব্যবহার করতেন পর্বতারোহীরা। কিন্তু নব্বইয়ের দশকে রুটটি পরিবর্তন করা হয় কারণ এটা ছিল শর্টকাট ও সহজ। এমনকি অনভিজ্ঞরাও এই পথে আরোহন করতে পারতেন। একটাই সমস্যা ছিল ওই রুটে- তুষারধসের ঝুঁকি।

সূত্র : বিবিসি